Note: Now you can download articles as PDF format
বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য 9564866684 এই নাম্বারে যোগাযোগ করুন
  • Short Story

বৃদ্ধাশ্রম

  • রাহুল বর্মণ
  • June 21, 2020
  • 204 বার পড়া হয়েছে

Sorry! PDF is not available for this article!


(১)
 
       _ "মা, ওটা কিসের আওয়াজ?" ৪ বছরের পিতৃহারা ছেলেটার ঘোর ভাঙ্গে আকাশ দিয়ে উড়ে যাওয়া একটা প্লেনের আওয়াজ শুনে। তার মা তাকে নিশ্চিন্দিপুরের গল্প শোনাচ্ছিল। ছেলের প্রশ্নের আকস্মিকতায় গল্পে নিশ্চিন্দিপুরের স্বপ্নের জাল বোনা অসমাপ্ত থেকে যায় মায়ের।
_ "ওটা প্লেনের আওয়াজ সোনা। ওপরে আকাশ দিয়ে ওরা এক দেশ থেকে অন্য দেশে চলে যায়। ওই দেখো।" বলে মা তার ছেলেকে জানালা দিয়ে আকাশের দিকে ইঙ্গিত করে আঙুল দিয়ে। চার বছরের ছোটো ছেলেটা শুধু  মিটমিট করা তিনটে লাল আলোকে আকাশের অন্ধকারে মিশে যেতে দেখে।
_  "তুমিও তো বড়ো হলে ওই প্লেনে চড়েই বিদেশ পাড়ি দেবে। এখন চোখ বন্ধ করো। দেখবে স্বপ্নে প্লেন তোমাকে উড়িয়ে নিয়ে যাবে বিদেশে।" কথাটা শুনে ছেলেটা অধীর আগ্রহে চোখ বন্ধ করে, প্লেনে করে বিদেশ পাড়ি দেবার ইচ্ছায়।
তখন থেকেই নিশ্চিন্দিপুরের স্বপ্নের মাঝে বিদেশ পাড়ি দেবার লোভ এসে ঝগড়া বাঁধায়। ছোট্ট ছেলেটার স্বপ্নে নিশ্চিন্দিপুরের গ্রাম, গাছের ছায়া, ধান ক্ষেত, দিগন্ত বিস্তৃত সবুজ ধরা দিত না; ধরা দিত বিদেশের উঁচু উঁচু বহুতল, বিদেশের জীবন। ট্রেনের পু-ঝিকঝিক তার মনে কোনো দাগ কাঁটত না, বরং আকাশের কালোতে মিশে যাওয়া ওই তিনটে মিটমিট করা লাল আলো কৌতুহল জাগাতো।
 
(২)
 
_ "দিদি,কখনও তোমার ছেলে আসে না কেন, এত বছর হয়ে গেল?" বৃদ্ধাশ্রমের একজন জিজ্ঞেস করে।
_ "আসবে,বিদেশ থেকে আসা কি এতোই সহজ?" বৃদ্ধা মা দীর্ঘশ্বাস ছাড়েন।
সে জানে তার ছেলে আসবে না, যে ছেলে তাকে বৃদ্ধাশ্রমে রেখে গেছে, সে কোনোদিন আসবে না।
কথা গুলো ভাবতে ভাবতে বৃদ্ধার একটা কান্নাভরা দীর্ঘশ্বাস খেলে যায় সামনে থাকা ছেলের ছোটোবেলার খেলনা গাড়ি, ঝুমঝুমি,কাজললতা,ঝিনুকবাতি আর স্লেট গুলোর ওপর।

পরিচিতি:

Name:- Rahul Barman
Address:- 101, Sukantapally, Tarapukur Road, Kolkata-700109

শেয়ার করুনঃ